top of page

দুবাইয়ে চাকরি পেতে যে দক্ষতা গুলো থাকা দরকার






বহির্বিশ্বে দক্ষ ও অর্ধ-দক্ষ অভিবাসী কর্মীদের চাহিদা বরাবরই বেশি। সাম্প্রতিক বছরগুলোতে সেই চাহিদা আরও বেড়েছে। শ্রমবাজার ধরতে বাংলাদেশও সে দিকে নজর দিয়েছে, জোর দিয়েছে দক্ষ ও প্রশিক্ষিত জনশক্তি রপ্তানিতে। আমরা অনেকেই বিদেশে কাজের জন্য যেতে চাই। কিন্তু পর্যাপ্ত অভিজ্ঞতা ও জ্ঞানের অভাবে যেতে পারিনা বা যেতে পারলেও অদক্ষতার কারণে যথাযথ পারিশ্রমিক পাই না। আপনি দুইবাই এ কাজের জন্য যেতে আগ্রহী হন সেক্ষেত্রে আগে থেকেই কিছু প্রস্তুতি নিলে ভিসা এবং কাঙ্ক্ষিত বেতনের চাকরি পেতে অসুবিধা হবে না।

চলুন জেনে নেয়া যাক এমন ৪ টি দক্ষতা যা আপনার দুবাই এ চাকরির বাজারে জায়গা করে নিতে সহায়তা করবে।


কারিগরি দক্ষতা:


শ্রমবাজারের প্রতিযোগিতায় টিকে থাকতে হলে আমাদের কারিগরি শিক্ষার মাধ্যমে দক্ষ জনশক্তি গড়ে তোলার বিকল্প নেই। যেহেতু আমরা প্রবাসীদের চাকরির ব্যাপারে কন্সাল্টেশন দিয়ে থাকি, আমরা প্রায় অনেক নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি দেখতে পাই যেখানে চাকরিদাতা বিভিন্ন কারিগরি দক্ষতায় পারদর্শী জনবল নিতে আগ্রহী। পরিসংখ্যান বলে মধ্য প্রাচ্যে বাংলাদেশ থেকে আগত জনবলের একটি বড় অংশ নিয়োজিত থাকে বিভিন্ন কারিগরি দক্ষতাসম্পন্ন কাজে। যেমনঃ


  • নির্মাণ বা কন্সট্রাকশন কাজ

  • ফ্যাক্টরি ওয়ার্ক

  • ড্রাইভিং

  • রান্না

  • রেস্টুরেন্টের কাজ

  • ক্লিনিং

  • ইলেকট্রিক্যাল কাজ

  • গাড়ি,ইলেকট্রিক্যাল যন্ত্রপাতি রিপেয়ারিং

  • প্লাম্বার

  • মেকানিক

  • ইত্যাদি

এসব ছাড়াও সময় ব্যবস্থাপনা, প্রব্লেম সলভিং,যেকোনো পরিবেশে খাপ খাওয়াতে পারা,উচ্চতা,বদ্ধ পরিবেশ,দূর্যোগপূর্ণ আবহাওয়ায় কাজ করতে পারার ক্ষমতা প্রভৃতি গুণাগুণ কর্মক্ষেত্রে কাজে আসে। সুতরাং আপনার যদি এই বিষয়গুলো তে কারিগরি এবং প্রায়গিক দক্ষতা থাকে তাহলে মধ্য প্রাচ্যের বিভিন্ন দেশে সহজে চাকরি লাভ সম্ভব হবে।


দক্ষ জনবল খুব সহজে প্রতিকূল এবং প্রতিযোগিতামূলক বাজারে নিজের জায়গা করে নিতে পারে। প্রবাসীর পক্ষ থেকে আমরা আপনার দক্ষতার উপর ভিত্তি করে চাকরির জন্য কনসাল্টেশন করে থাকি, প্রয়োজনে আমাদের সাথে যোগাযোগ করুন।


ভাষাগত দক্ষতা বা ল্যাংগুয়েজ স্কিল:


মানুষের ভাব বিনিময় বা যোগাযোগের মাধ্যম হলো ভাষা। ভাষা দক্ষতার অংশ মূলত ৪ টি। শোনা,বলা,পড়া ও লিখা। বিদেশে চাকরীর জন্য যেতে হলে সেই দেশের ভাষা বা ইংরেজি ভাষার উপর নূন্যতম দক্ষতা থাকা আবশ্যক অর্থাৎ অন্তত কথা শুনে বোঝার ও কথা বলতে পারার দক্ষতা থাকতে হবে । চাকরী ক্ষেত্র ছাড়াও দৈনন্দিন চলাফেরার জন্য ভাষাগত দক্ষতার প্রয়োজনীয়তা রয়েছে। মধ্য প্রাচ্যের বিভিন্ন দেশের আরবের প্রধান ভাষা আরবী। সেখানে যাওয়ার আগে ইংলিশের পাশাপাশি আরবি ভাষা শিখলে আপনার চাকরী লাভের পথ সহজ হবে। তবে মনে রাখবেন, দুবাই এ যাওয়ার আগে ইংলিশ বা আরবী যেকোনো একটি ভাষায় দক্ষতা অর্জন করে নিবেন। বিভিন্ন ভাষা শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের পাশাপাশি, ঘরে বসে বিভিন্ন অ্যাপ,ইউটিউব ভিডিওর মাধ্যমে আপনারা ভাষাগত দক্ষতা অর্জন করতে পারবেন।


ইন্টার্ভিউ দেয়ার দক্ষতা:


চাকরী, বিদেশ ভ্রমণ বা চিকিৎসার জন্য বিদেশে যাওয়ার সবচাইতে গুরুত্বপূর্ণ অংশ হলো ইন্টার্ভিউ। একটি ভালো ইন্টার্ভিউ এর উপর আপনার বিদেশে যাওয়ার পরবর্তী প্রক্রিয়া নির্ভর করে। ইন্টার্ভিউতে আপনার বিদেশে যাওয়ার কারণ,আপনার দক্ষতা প্রভৃতি বিভিন্ন বিষয়ে প্রশ্ন করা হতে পারে। ইন্টার্ভিউ দক্ষতা বাড়াতে সহযোগী কিছু টিপস এন্ড ট্রিকস আপনাদের জন্য দেয়ার চেষ্টা করছি।

  • ইন্টার্ভিউ তে কখনো দেরী করে যাবেন না। চেষ্টা করুন নির্দিষ্ট সময়ের আধ ঘন্টা আগে উপস্থিত থাকার।

  • ইন্টার্ভিউ তে আপনার প্রয়োজনীয় সকল কাগজপত্র একটি ফাইলে রাখুন যাতে করে ইন্টার্ভিউয়ার কোনো কাগজপত্র চাইলে দ্রুত তাকে সেগুলো দেয়া যায়।

  • প্রশ্নকর্তার প্রশ্ন ভালো করে বুঝে উত্তর দেয়ার চেষ্টা করুন। কোনো প্রশ্নের উত্তর জানা না থাকলে অপ্রাসঙ্গিক কথা না বলে ভদ্রতার সাথে বলুন প্রশ্নটির উত্তর আপনার জানা নেই।

  • অতিরিক্ত হাত নেড়ে কথা বলা থেকে বিরত থাকুন, হাত টেবিলের উপর রেখে কথা বলবেন না

  • ইন্টার্ভিউ তে ফর্মাল পোশাক পড়ার চেষ্টা করুন।

কমিউনিকেশন বা যোগাযোগ দক্ষতা:


যেকোনো চাকরীর ক্ষেত্রে সর্বপ্রথম যে দক্ষতাটি প্রয়োজন তা হলো কমিউনিকেশন স্কিল বা যোগাযোগ দক্ষতা। যখন আমরা একজন বা একাধিক লোকেদের সাথে যোগাযোগ করি বা কথা বলে থাকি, তখন আমরা কতটা ভালো করে, সঠিক ভাবে, আকর্ষণীয় ভাবে কথা বলতে পারি সেই কৌশল টিকেই বলা হয় যোগাযোগ কৌশল বা যোগাযোগ দক্ষতা। চাকরি লাভের ক্ষেত্রে আপনাকে জানতে হবে চাকরির ইন্টার্ভিউ তে আপনি কিভাবে কথা বলবেন, আপনার নিয়োগকর্তার সাথে আপনার আচরণ কেমন হবে, কিভাবে আপনার সহকর্মীদের সাথে সৌহার্দ্যপূর্ণ সম্পর্ক বজায় রাখবেন,আপনার ক্লায়েন্টদের সাথে কিভাবে ইন্ট্যার‍্যাক্টিভ ভাবে কথা বলবেন। একজন যোগাযোগে পারদর্শী ব্যক্তির চাকরী ক্ষেত্রে সফল হওয়ার সম্ভাবনা বেশি থাকে।


যোগাযোগ দক্ষতা ভালো করার জন্যে নিচের পয়েন্ট গুলো আপনাদের কাজে লাগবে বলে আশা করি।

  • বডি ল্যাঙ্গুয়েজে (Body language)

  • বক্তার কথা ভালো করে শুনার কৌশল (Listening)

  • আত্মবিশ্বাস এর সাথে কথা বলা (Confidence)

  • চোখে চোখ রেখে কথা বলা (Eye contact)

  • সঠিক শব্দের ব্যবহার

  • সম্মান দিয়ে কথা বলা (Respect)

  • কথা সম্পূর্ণ করা

সর্বোপরি আমরা বলতে পারি মধ্য প্রাচ্যের সহ বিশ্বের যেকোনো দেশে ভালো বেতনের চাকরি পেতে হলে দক্ষতার কোনো বিকল্প নেই। একজন চাকরীদাতা অদক্ষ কর্মীর তুলনায় দক্ষ কর্মী নিতেই বেশি আগ্রহ প্রকাশ করেন। যেকোনো চাকরি গ্রহণের পূর্বে আপনার নির্দিষ্ট কোন কোন দক্ষতার প্রয়োজন তা লিপিবদ্ধ করুন। আপনার সেই বিষয়ে পর্যাপ্ত জ্ঞান না থাকলে জানার চেষ্টা করুন। এরপরে আপনার পছন্দের চাকরির জন্য প্রবাসীর সাথে যোগাযোগ করুন: 01952-000700

9 views

Comments


bottom of page